আমাদের দোষ একটাই – আমরা মুসলমান বলছিলেন ধলপুরের এক গ্রামবাসী

আসামে দরং জেলার প্রত্যন্ত ধলপুর গ্রামটার ছবি প্রথম দেখেছিলাম সাত আট দিন আগে গণমাধ্যম আর সোশাল মিডিয়ায় আমরা মুসলমান

এই গ্রামের যুবক মইনুল হকের ওপরে বর্বরতার ছবি আর তার মৃত্যুর সেই মর্মান্তিক ভিডিওটাও দেখেছিলাম তখনই।

এই গ্রামেই আসাম সরকার দফায় দফায় উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে গত কয়েকমাসে।

প্রথমদিকে বলা হচ্ছিল একটি প্রাচীন শিবমন্দিরকে অনেক বড় আকারে গড়ে তোলার লক্ষ্যে মন্দির সংলগ্ন জমি থেকে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হচ্ছে। এধরনেরই একটি উচ্ছেদ অভিযানের সময়ে ২৩শে সেপ্টেম্বর আশ্রয়চ্যুতদের বিক্ষোভে পুলিশ গুলি চালায়।

স্থানীয় সাংবাদিকরা পুলিশের গুলিতে অন্তত দুজনের মৃত্যু ও আরও বেশ কয়েকজনের আহত হওয়ার খবর জানান।

Related Posts
1 of 56

পরে জানা যায়, সেখানে আসাম সরকার একটি কৃষি খামার গড়ে তোলার জন্য তাদের ভাষায়, জমি দখলমুক্ত করতে তারা অভিযান চালিয়েছে।

উচ্ছেদের ফলে ভিটে মাটি হারিয়েছেন স্থানীয় বহু বাসিন্দা।

সেখানে মানুষ কীভাবে দিন কাটাচ্ছেন তা দেখতে দিন কয়েক আগে নৌকায় চেপে দু দুটো ছোট খাল পেরিয়ে হাজির হয়েছিলাম ধলপুরে।

প্রথমেই চোখে পড়ল ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তিনকোণা ঢেউ টিনের সারি।

কাছে এগিয়ে যেতেই বুঝলাম যে এগুলো আসলে কোনও বাড়ির টিনের ছাদ ছিল।

যখন উচ্ছেদ অভিযান চলেছে এই গ্রামগুলোতে, যখন ভাঙা পড়েছে বসতবাড়ি, এই ঢেউ টিনের ছাদগুলোকেই মানুষ সরিয়ে নিয়ে এসেছেন। তার তলাতেই কোনমতে মাথা গুঁজে থাকা। কয়েকটা থালা বাসন, একপাশে জড়ো করে রাখা কয়েকটা বালতি, বিছানা-তোষক।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More