ট্যাবলেট-ইনজেকশন ছাড়াই আখাউড়ার টাইগার ২৭ মণ

কিভাবে একটি গরু কোন রকমের ট্যাবলেট, ই’ঞ্জে’ক’শ’ন ছাড়াই ২৭ মনে হতে পারে বিষয়টি সত্যি অবিশ্বাস্য বিষয়! এমনই এক ঘটনা

Related Posts
1 of 56

ঘটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার মগরা ইউনিয়নে ধাতুর পহেলা গ্রামে। সেখানকার এক গরুর খামারি নাম মোঃ রফিক

সরকার (ডাক নাম মিন্টু মিয়া) খামারে অনেক যত্নসহকারে গরু পালন করে থাকেন তিনি তার খামারে ফিজিয়ান জাতের গরু লালন

পালন করছেন।

এই জাতের গরু কোন রকমের ইঞ্জেকশন ট্যাবলেট ছাড়াই 25 থেকে ৪৫ মন পর্যন্ত হয়ে থাকে। গতবার কো’র’বানি ঈদে তার কাঙ্ক্ষিত

দাম না পাওয়ায় বিক্রি করতে পারেননি টাইগারকে। তিনি আশা করছেন এবারের কো’র’বা’নি ঈদের তিনি 10 লক্ষ টাকা ছাড়িয়ে

বিক্রি করবেন টাইগারকে । এই গরুটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৯ ফুট এবং এর ওজন প্রায় ২৭ মন ২০ কেজি। তবে এই গরুটি খামারের মালিক

ছাড়া অন্য কারো কথা শোনে না অন্য কারও হাতে খাবার খায় না।

দেখে বোঝা যায় খামারি তার গরুকে অনেক ভালবাসেন এবং যত্ন সহকারে লালন পালন করেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার

সবথেকে বড় সার বলে দাবি করেন খামারি। এলাকায় এলাকায় চলছে এই গরু নিয়ে আলোচনা। প্রায় প্রতিদিনই তার বাড়িতে এই

সাইটটিকে দেখতে ভিড় জমায় লোকজন। এই গরুটির ওজন প্রায় ১১০০ কেজি। তার এই বিশাল আকারের খামারেরও হয়েছে আরো

অনেক গরু এরমধ্যে গাভী ৩০ টি ও স্যার জাতীয় গরু ১০ টি মোট ৪০ টি গরুর রয়েছে। তিনি প্রতিদিন 100 লিটার এর উপরে

গাভীর দুধ বিক্রি করেন। আর এই দুধের টাকা দিয়েই তার গরুর খাবার খরচ চালান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More