The Latest Technology Updates Here

নতুন ঘটনার মোড়ঃ রাতে প্রায় তিন ঘণ্টা ওই ফ্ল্যাটে ছিলেন মামুন

নাটোর শহরের বলারীপাড়া মহল্লার হাজী নান্নু ম্যানশনের চতুর্থ তলায় ভাড়া থাকতেন কলেজ শিক্ষক খায়রুন নাহার (৪০) ও কলেজছাত্র মামুন হোসাইন (২২) দম্পতি। ওই বাড়ির নিরাপত্তা প্রহরী নিজাম উদ্দিন জানান, গত রাতে প্রায় তিন ঘণ্টা ওই ফ্ল্যাটে ছিলেন মামুন।
নিরাপত্তা প্রহরী আরোও বলেন, ‘শনিবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে মোটরসাইকেল নিয়ে মামুন ফ্ল্যাটে আসেন। এরপর রাত ২টা থেকে আড়াইটার দিকে হাসপাতালে কাজ আছে বলে মামুন চলে যান। এরপর ভোর ৬টার দিকে আবার ফিরে আসেন। এর প্রায় পাঁচ মিনিট পরে মামুন জানান তার স্ত্রী আত্মহত্যা করেছেন।’

এক প্রশ্নের জবাবে মামুন দাবি করেন, গত রাত ৩টা থেকে সাড়ে ৩টার দিকে তিনি মোটরসাইকেলে বাড়িতে আসেন। এরপর নামাজের জন্য মসজিদের উদ্দেশে বের হন। যাওয়ার সময় খাইরুন ঘুমিয়ে ছিলেন। সকাল ৭টায় তাকে খুবজিপুর কলেজে রেখে আসবেন ভেবে নামাজ পড়ার আগেই খায়রুনকে ফোন দিলে বন্ধ পান। এরপর সে নামাজ না পড়েই বাড়ি এসে দেখেন খায়রুন ওড়না দিয়ে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আছেন। তখন পকেটে থাকা লাইটারের আগুনে ওড়না পুড়িয়ে তাকে নামান।

নামাজের জামাত কখন জিজ্ঞেস করায় মামুন একবার বলেন জামাত ৪টার পর, আবার বলেন সাড়ে ৫টায়।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মামুন জানান, তিনি একেক সময় একেক মসজিদে নামাজ পড়েন।

এদিকে এলাকাবাসী জানান, তারা অনেকেই জানতেন না যে ওই ফ্ল্যাটে ৪তালায় শিক্ষক-ছাত্র দম্পতি ভাড়া থাকেন। তারা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেন।

শিক্ষিকার কর্মস্থল গুরুদাসপুরের খুবজিপুর কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু সাঈদ জানান, এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন, ‘সবদিক বিবেচনা করে এ ঘটনার তদন্ত ও রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে।

সোমবার (১৫ আগস্ট) দুপুরে পুরে মামুনকে ৫৪ ধারায় আটক দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়। এবং বিকেলে মামুনকে নাটোর আদালতে হাজির করা হলে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোসলেম উদ্দীন জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

Comments are closed.