বাড়িতে ডেকে নিয়ে মাকে অজ্ঞান করে মেয়েকে ধর্ষণ

]
খুলনার পাইকগাছায় চাকরিজীবী ছেলের সঙ্গে বিয়ে দেয়ার নাম করে বাড়িতে ডেকে নিয়ে মাকে অজ্ঞান করে মেয়েকে ধর্ষণ করার ঘটনা ঘটেছে। এ অভিযোগে পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে।

জানা যায়, গত ৩ মার্চ উপজেলার উত্তর সলুয়া গ্রামের মৃত রহিম বক্সর ছেলে মিজানুর রহমান নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ করে পার্শ্ববর্তী থানা কয়রার অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। পরের দিন সকাল ৭টায় কপিলমুনি ধান্য চত্বরে ছেড়ে দিয়ে চলে যায়। পরে সংবাদ পেয়ে বাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে।

ভিকটিমের কাছ থেকে বিস্তারিত জানার পর ভিকটিমের মা মেরিনা বেগম বাদী হয়ে থানায় মামলা করে।পুলিশ তাকে সোমবার রাতে সোনাতন কাটি বাজার থেকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন।

বাদী মেরিনা বেগম জানান,তার মেয়েকে কয়রায় চাকরিজীবী একটা ছেলের সঙ্গে বিয়ে দেবে বলে তাকেসহ মেয়েকে বাড়িতে ডেকে আনেন মিজানুর রহমান। এ সময় তাকে কোমলীয় পানি খেতে দিলে তিনি অজ্ঞান হয়ে যান। পরে তার মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে রাখে। একদিন পর ৪ মার্চ সকালে তাকে কপিলমুনি ধান্য চত্বর থেকে উদ্ধার করা হয়।

পাইকগাছা থানার ওসি এজাজ শফী জানান, ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে উপযুক্ত শাস্তির জন্য সবটুকু আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যাপারে কোনো প্রকার ছাড় দেয়া হবে না।