বিশ্বের বৃহৎ জনগোষ্ঠীর ধর্ম হতে যাচ্ছে ইসলাম!

বিশ্বের বৃহৎ জনগোষ্ঠীর ধর্ম হতে যাচ্ছে ইসলাম!

চলতি শতকেই পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় ধর্ম হবে মুসলমানদের ইসলাম। এর ফলে ২ হাজার বছর ধরে বিশ্বের সর্ববৃহৎ খ্রিস্টধর্মের পতন ঘটবে। এমন বিস্ফোরক তথ্য উঠে এসেছে মার্কিন থিংক ট্যাঙ্ক ‘পিউ রিসার্চ সেন্টার-এর এক প্রতিবেদনে।

islam mulim pic
পবিত্র মক্কা শরীফ, ফাইল ছবি

এতে বলা হয়, চলমান একুশ শতকের শেষে খ্রিস্টধর্মের স্থান দখল করবে ইসলাম ধর্ম। ২০৭৫ সাল নাগাদ বিশ্বের বৃহৎ জনগোষ্ঠীর ধর্ম হবে এটি। ২০১৫-৬০ সালের মধ্যে বিশ্ব জনসংখ্যার চেয়ে দ্বিগুণ হারে বৃদ্ধি পাবে মুসলিমদের সংখ্যা।

এ বিষয়ে ২০১৭ সালে পিউ রিসার্চ সেন্টারের প্রকাশ করা দুটি নিবন্ধের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে তুরস্কের টিআরটি ওয়ার্ল্ড। তাতে বলা হয়েছে, আগামী দশকে বিশ্ব জনসংখ্যা ৩২ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে, তার মধ্যে মুসলিম বাড়বে ৭৫ শতাংশ।

islam christianity
ইসলাম বনাম খ্রিস্টধর্ম, ফাইল ছবি

বিশ্বে মুসলিমদের সংখ্যা ২০১৫ সালে ছিল ১ দশমিক ৮ বিলিয়ন, যা ২০৬০ সালে বেড়ে দাঁড়াবে প্রায় ৩ বিলিয়নে। এ ছাড়া বিশ্বে মোট জনসংখ্যার ক্ষেত্রে মুসলমানরা ২০১৫ সালে ২৪ দশমিক ১ শতাংশ থাকলেও তা ৩১ দশমিক ১ শতাংশে পৌঁছাবে। এর ফলে বিশ্বের প্রতি ১০ জনের তিনজনই হবে মুসলমান।

বর্তমানে আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্যে মুসলমানদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি, এটি আগামীতে আরো বাড়বে। তবে লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবিয়ান অঞ্চল বাদে প্রায় সবখানেই শতকরা হারে মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। এর মধ্যে মুসলমানদের সংখ্যা নগণ্য থাকা অঞ্চলগুলোও থাকবে।

আরও একটি নিউজ পড়ুন,,,,,

বিশ্বের বিরলতম স্তন্যপায়ী প্রাণির খোঁজ মিলল দেশের গহীন জঙ্গলে।

বিশ্বের বিরলতম স্তন্যপায়ী প্রাণির খোঁজ মিলল দেশের গহীন জঙ্গলে।
অতিগহন দুর্গম জঙ্গলে ক্যামেরা লাগানো হয়েছিল অন্য প্রাণির খোঁজে। কিন্তু ধরা পড়ল যে প্রাণি তা যে দেশে আছে তা দেখেই হতবাক বন আধিকারিকরা।

চারিদিকে পাহাড়ের সারি। ঘন সবুজ বনে ঢাকা মাইলের পর মাইল এলাকা। এতটাই গহন বন যে সেখানে সাধারণত মানুষ যান না।

ভূপৃষ্ঠ থেকে ৩ হাজার ৫০০ মিটার উচ্চতায় গহন পাহাড়ি জঙ্গলে ক্যামেরা লাগানো হয়েছিল স্নো লেপার্ড পরিসংখ্যানের কথা মাথায় রেখে। কিন্তু সেই লুকোনো ক্যামেরা এমন ছবি দিল যার জন্য কোনও বন্যপ্রাণি বিশেষজ্ঞও তৈরি ছিলেননা।

এমনকি বন বিভাগের অনেক আধিকারিক এটা দেখেই হতবাক যে এ প্রাণি ভারতের জঙ্গলে ঘুরে বেড়াচ্ছে। অথচ কারও জানা নেই!

অরুণাচল প্রদেশের একটা বড় অংশই ঘন জঙ্গলে ঘেরা। অগুন্তি পাহাড় আর জঙ্গলে ঘেরা অধিকাংশ জায়গায় মানুষের বাস নেই। সেখানে অনেক জায়গায় মানুষ যানই না। যেতে পারাই এক কঠিন কাজ।

অরুণাচলের পূর্ব কামেং জেলার সেপ্পা জঙ্গল এমনই দুর্গম গহন জঙ্গল। সেখানে মানুষের যাতায়াত নেই। সেখানেই ক্যামেরায় ধরা পড়েছে বিশ্বের অন্যতম বিরল এক প্রাণি। যা লাল তালিকার অন্তর্ভুক্ত। অর্থাৎ তা অতিবিরলের তালিকায় পড়ে।

অরুণাচলে ক্যামেরায় ধরা পড়া অতিবিরল তাকিন, ছবি – আইএএনএস
তাকিন নামে এই প্রাণিটি আদপে ছাগল গোত্রের। কিন্তু তার দেহ অনেক বড়। ধরা হয় বিশ্বের অন্যতম বিশাল স্তন্যপায়ী প্রাণির অন্যতম এই তাকিন। যা বিশ্বের কোথাওই প্রায় দেখতে পাওয়া যায়না।

তা যে ভারতের জঙ্গলে ঘুরছে তাই কারও জানা ছিলনা। তবে ছবিতে একটিই তাকিন ধরা পড়েছে। ফলে ওই জঙ্গল বা তার আশপাশে কতগুলি তাকিন রয়েছে তা এখনও অজানা। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা