ভাই হত্যার প্রতিশোধ নিতেই মেয়ে সেজে প্রেম, ডেকে এনে খুন

ভাই হত্যার প্রতিশোধ নিতেই মেয়ে সেজে ডেকে এনে কুপিয়ে হত্যা করা হয় পাবনার বেড়া উপজেলার ইমরান হোসেনকে। এমনটাই জানায় ইমরান হোসেন হত্যা মামলায় গ্রেপ্তারকৃত আজাদুর রহমান নবীন (২৪)।

পুলিশ বেড়া ও নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা এলাকায় অভিযান চালিয়ে বেড়া উপজেলার চাঞ্চল্যকর ইমরান হোসেন হত্যা মামলার জড়িত দুজনকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত আজাদুর রহমান নবীন (২৪) বেড়া উপজেলার স্যানাল পাড়ার আব্দুল মাজেদের ছেলে ও আলাউদ্দিন (২০) একই এলাকার মালেক মোল্লার ছেলে।

গত রবিবার (২৭ মার্চ) সকালে বেড়া উপজেলা সদরের আলহেরা নগর এলাকার একটি কৃষি জমি থেকে ইমরান হোসেনের (২২) ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
বেড়া মডেল থানার অফিসার-ইনচার্জ অরবিন্দ সরকার জানায়, ইমরান হোসেন হত্যাকাণ্ডের পর তার বাবা আব্দুল কুদ্দুস বাদী হয়ে ঘটনার পর দিন সোমবার (২৮ মার্চ) বেড়া থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ বেড়া ও নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আজাদুর রহমান নবীন ও আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে। এদের গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে বেড়িয়ে আসে চঞ্চল্যকর সব তথ্য।

জিজ্ঞাসাবাদে আজাদুর রহমান নবীন জানায়, ২০১৫ সালের আগস্ট মাসে ইমরানসহ কয়েকজন মিলে তার ভাই আরাফাতকে অপহরণের পর হত্যা করে। সেই মামলায় ইমরান প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর যশোর কিশোর সংশোধনাগারে থাকার পর প্রায় ৮/৯ মাস আগে বের হয়ে আসে। বের হয়ে আসার পর থেকে ইমরান নবীনকে বিভিন্নভাবে হেয়পতিপন্ন কথা বলতে থাকে। ভাই হত্যার প্রতিশোধ নিতে মড়িয়া হয়ে ওঠে নবীন।

ভাই হত্যার প্রতিশোধ নিতে নবীন মেয়ে কণ্ঠে প্রায় তিন মাস ইমরানের সঙ্গে মোবাইলে প্রেমের অভিনয় করে।পরিকল্পনা অনুয়ায়ী গত ২৬ মার্চ রাত সাড়ে ১১টার দিকে আজাদুর রহমান নবীন মেয়ে কণ্ঠে প্রেমিকার অভিনয় করে আলহেরা নগরের লিয়াকতের বাড়ির সামনে ডাকে ইমরানকে।