ভোলায় জন্ম হলো পেট জোড়া লাগানো যমজ শিশুর

ভোলার লালমোহনে পেট ও বুকের অংশে জোড়া লাগানো যমজ শিশুর জম্ম হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে লালমোহন শহরের একটি বেসকারি ক্লিনিকে মিতু বেগম (২০) নামের এক নারী এ যমজ শিশু জম্ম দেন।

মিতু বেগম উপজেলার ফুলবাগিচা গ্রামের ৮ নং ওয়ার্ডের ফকির বাড়ির রাজমিস্ত্রী বিল্লালের স্ত্রী।স্বামী বিল্লাল জানান, মঙ্গবার দুপুরে দিকে স্ত্রীর প্রসব বেদনা উঠলে লালমোহন ক্লিনিকে ভর্তি করেন। পরে তার স্বাবাভিক প্রসবে জটিলতা দেখা দিলে রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সিজারের মাধ্যমে জোড়া লাগানো শিশুর জম্ম হয়।

তিনি বলেন, তাদের এই প্রথম সন্তান। এক বছর আগে বিয়ে করেছিলেন তারা।চিকিৎসকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, মা ও নবজাতকরা এখন পযর্ন্ত সুস্থ আছেন।

ডাক্তার মুনতাহিনা হক জিম বলেন, নরমাল ডেলিভারি করানো কিছুটা ঝুঁকি ছিল। তাই তার সিজার করা হয়। শিশু দুইটা জোড়া লাগানো অবস্থায় আছে। এই ধরনের শিশু জম্ম রেয়ার ঘটনা। তবুও এ ধরনের জোড়া লাগানো শিশু আলাদা করা বাংলাদেশে সম্ভব।

লালমোহন ক্লিনিকের মালিক রিনা সুলতানা তুহিন বলেন, আমাদের ক্লিনিকে সব সময় নরমাল ডেলিভারিই হয়ে থাকে। এর আগে এক সাথে তিন সন্তানও জম্ম হয়েছে স্বাবাভিকভাবে। এই শিশুর বেলায় ঝুঁকি থাকায় সিজার করা হয়।