স্ত্রী-সন্তানদের রেখে প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে পা.লি,য়েছেন যৌ,তু.ক লো.ভী স্বামী

স্ত্রী-সন্তানদের রেখে প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়েছেন যৌতুক লোভী স্বামী

পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে নিজ স্ত্রী ও দুই পুত্র সন্তান রেখে মালয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রী কে নিয়ে পালিয়েছেন মোঃ সাকের আলী (৩৩) নামের এক যৌতুক লোভী স্বামী।

দীর্ঘ দাম্পত্য জীবনে পিতার কাছ হতে একাধিকবার গচ্ছিত টাকা যৌতুক বাবদ স্বামী কে দিয়েও স্বামী সংসার না বাঁচাতে পেরে বর্তমানে মানবেতর জীবন যাপন করছেন গৃহবধু মেহেরুন নেছা বেবী (২৮)। যৌতুক ও নারী লোভী সাকের শার্শা উপজেলার পুটখালী ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের মৃত দিন মোহাম্মদ ঝনুর পুত্র।

ভূক্তভোগী বেবী জানান, ২০০৬ সালের ১৫ই ডিসেম্বর পারিবারিক সন্মতিতে তাদের বিবাহ রেজিস্ট্রি হয়। বিবাহের ১বছর পর হতেই স্বামীর কু কর্মে বাধা দেয়া সহ চাহিদা অনুযায়ী যৌতুকের টাকা না দিতে পারায় স্বামীর গৃহে শারিরিক নির্যাতনের স্বীকার হন বেবী। তবুও পরিবর্তন ও সন্তানদের মুখ চেয়ে নীরবে শ্বশুড়ালয়ে থাকেন মেহেরুননেছা বেবী। সাম্প্রতি পরকিয়ায় জড়িয়ে মালয়েশিয়া প্রবাসী জিয়ার বিবাহিত স্ত্রী রত্না(৪০) কে নিয়ে আত্মগোপনে রয়েছেন তারা। কয়েক মাস ধরে স্বামীর অপেক্ষায় থেকে না পেয়ে সন্তানদের ভবিষ্যত চিন্তায় আদালতের শরনাপন্ন হয়ে যৌতুক আইনে মামলা দ্বায়ের করেছেন। যাহার মামলা নং-সি আর-৮০/২০। আদালত অভিযোগ টি আমলে নিয়ে অভিযুক্ত সাকের আলীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করেছেন।

বেনাপোল পোর্ট থানার সাব ইন্সেপেক্টর মোস্তাফিজুর রহমান আদালত কর্তৃক গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামী আটকে পুলিশী তৎপরতা চলমান রয়েছে।

পরকীয়ার টানে প্রবাসী স্বামীর সংসার ফেলে পালানো গৃহবধু রত্নার মা মোছাঃ শাহিদা খাতুন তার কন্যার পরকীয়া সম্পর্কের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নারী লোভী সাকের ফুসলিয়ে কৌশলে তার মেয়ে কে নিয়ে আত্মগোপনে রয়েছে। এ বিষয়ে তিনি বেনাপোল পোর্ট থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। রত্নার স্বামীর পাঠানো বিদেশী টাকা আত্মসাৎ করতে সাকের ইচ্ছাকৃত তার মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। তিনি সাকেরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়ে পলাতক সাকের আলী ও তার কন্যাকে প্রশাসনের কাছে সোপার্দ করতে সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সহযোগীতা কামনা করেছেন।