প্রেমিক সচিবের বাড়িতে ১০ দিন ধরে প্রেমিকার অনশন

বিয়ের দাবিতে প্রেমিক শাকিল রানা সচিবের বাড়িতে ১০ দিন ধরে অনশন অব্যাহত রেখেছেন কলেজছাত্রী পারুল আক্তার (২৩)। বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে সব লুটে নিয়েও রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে প্রেমিকা পারুলকে বাড়ি থেকে বের করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেন পারুল ও তার পরিবার।

এ ঘটনায় বাসাইল থানায় মামলা করতে গেলেও মামলা নেয়নি বলে অভিযোগ প্রতারণার শিকার ছাত্রী পারুলের।জানা যায়, পারুল সখীপুর উপজেলার হতেয়া গ্রামের স্কুলশিক্ষক সিদ্দিকুর রহমানের মেয়ে করটিয়া সা’দত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অনার্স শেষ পর্বের ছাত্রী।

আর অভিযুক্ত শাকিল বাসাইল উপজেলার ফুলকি পশ্চিমপাড়ার এমডি মাসুদ রানা মান্নানের ছেলে ও উপজেলা যুবলীগের সদস্য। তিনি গত ইউপি নির্বাচনে ফুলকি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন বলে জানা গেছে।

পারুলের অভিযোগ, আড়াই বছর ধরে অভিযুক্ত শাকিল রানা সচিবের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে মেলামেশা করলেও শেষ পর্যন্ত শাকিল তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করায় গত ৮ মে সকালে তার বাড়িতে অবস্থান নিতে বাধ্য হন বলে জানান পারুল।

অনশনরত তরুণী আরও বলেন, এ বাড়িতে আসার আগেও শাকিলের জন্য নিজেকে শেষ করার চেষ্টা করেছিলাম। শাকিল আমার সরলতার সুযোগ নিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সবকিছু লুটে নিয়েছে, সে আমাকে বিয়ে না করা পর্যন্ত আমি ওর জন্য অপেক্ষা করব এবং এ বাড়ি থেকে বের হবো না।

পারুল বলেন, বাসাইল থানায় মামলা করতে গেলেও পুলিশ মামলা নেয়নি। বাধ্য হয়ে টাঙ্গাইল কোর্টে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।স্থানীয়রা জানায়, সময় মতো না খেয়ে মেয়েটি গত ১৪ মে বিকেলে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর সুস্থ হয়। মেয়েটির সঙ্গে যদি শাকিল প্রেমই না করতেন তাহলে মেয়েটি তাদের বাড়িতে কেন আসবে? এই মুহূর্তে এ ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান না করলে ঘটতে পারে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা।