নাটোরের গুরুদাসপুরে পরকীয়া করতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন ছাত্রলীগ নেতা

নাটোরের গুরুদাসপুরে পরকীয়া করতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন ছাত্রলীগ নেতা

নাটোরের গুরুদাসপুরে ব্যবসায়ীর স্ত্রীর সাথে পরকীয়ার সময় আপত্তিকর অবস্থায় আটক হয়েছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সুবাশিষ কবির সুবাশ। মঙ্গলবার দিবাগত রাত আনুমানিক দুইটায় চাঁচকৈড় বাজারপাড়া মহল্লায় এক গৃহবধুর ঘরে আপত্তিকর অবস্থায় এলাকাবাসীর তাকে আটক করে।

এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। পরে নেতাকে গণধোলাই দিয়ে পুর্বের স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে ১০ লক্ষ টাকা কাবিনমূল্যে তাকে বিয়ে দেওয়া হয়।

এলাকাবাসী জানায়, নাটোরের গুরুদাসপুর পৌর এলাকার চাঁচকৈড় বাজারপাড়া মহল্লার এক ফিড ব্যবসায়ীর স্ত্রীর সাথে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন ছাত্রলীগ নেতা সুবাস। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ব্যবসায়ীকে অন্য ঘরে ঘুমিয়ে রেখে ওই নারী ও সুবাস পাশের একটি কক্ষে অবৈধ মেলামেশার সময় স্থানীয়রা তাদের হাতেনাতে আটক করে।

পরকীয়ায় জড়িত হওয়ায় স্বামী তাকে সঙ্গে সঙ্গে তালাক দেন। পরে তাদের দুইজনের সম্মতিতে ১০ লাখ টাকা কাবিনমূলে রাতেই স্থানীয় কাজী আব্দুল্লাহ তাদের বিয়ে দেন। পরবর্তীতে নববধধূকে নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা সুবাস নিজবাড়ি উপজেলার খুবজীপুরে শ্রীপুরে নিয়ে যায় ।

 

১২ বছর পূর্বে ফিড ব্যবসায়ী কুষ্টিয়ায় বিয়ে করেছিলেন। তাদের কোন সন্তান নেই । কর্ম ব্যস্ততার কারণে দিনের অধিকাংশ সময় ব্যবসায়ী বাইরে অবস্থান করার সুযোগে তার স্ত্রী পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। প্রায় ২ বছর ধরে এই পরকীয়া প্রেম চলছিল বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুবাশীষ কবির সুবাস কোন মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

নাটোর জেলা ছাত্রলীগের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল মাসুম জানান, ছাত্রলীগ নেতা সুবাস পরকীয়া করে ধরা পরে বিয়ে করেছে বলে আমিও শুনেছি। কারো অনৈতিক কর্মকান্ডের দায়ভার সংগঠন নেবে না। এ বিষয়ে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Related Posts
1 of 151

বঙ্গবন্ধুর ওপর ‘গোপন দলিল’ অমূল্য সম্পদ : প্রধানমন্ত্রী

Screenshot 20211105 192054

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর গোয়েন্দা সংস্থার প্রকাশিত ‘গোপন দলিল’ বাংলাদেশের রাজনীতি ও ইতিহাস গবেষকদের জন্য অমূল্য সম্পদ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ভাষা আন্দোলন থেকে দেশের স্বাধীনতা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর আত্মত্যাগ ও সংগ্রাম সম্পর্কে প্রকৃত এবং সম্পূর্ণ ইতিহাস এই গোপন দলিলে পাওয়া যাবে…। এর মাধ্যমে বিশ্বের জনগণও বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন সম্পর্কে জানতে পারবে।

শুক্রবার (৫ নভেম্বর) লন্ডনের ক্লারিজ হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তৎকালীন পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার গোপন দলিলের আন্তর্জাতিক প্রকাশনার উদ্ধোধন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, এই প্রকাশনা থেকে দেশের রাজনৈতিক নেতা ও নতুন প্রজন্ম শিক্ষা…নিতে পারবে। এসব গোপন দলিল বাংলাদেশের জাতীয় ইতিহাসের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, পাকিস্তান সৃষ্টির পর পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর…রহমানের ওপর এসব গোপন দলিল ও রেকর্ড তাদের সংগ্রহে রেখেছিল।

প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন, পাকিস্তানের ২৪ বছরের ইতিহাসে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো বঙ্গবন্ধুর প্রতিটি মুহূর্তের গতিবিধি ও কর্মকাণ্ড অনুসরণ করতো। বঙ্গবন্ধু তার জীবনের তিন হাজার ৫৩ দিন কাটিয়েছেন পাকিস্তানের কারাগারে।

শেখ হাসিনা বলেন, শুধু বঙ্গবন্ধুই নয়, পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিবকেও সার্বক্ষণিক গোয়েন্দা নজরদারিতে রাখতো…। বিশেষ করে ১৯৬৬ সালে ছয় দফা ঘোষণার পর থেকে বঙ্গমাতা সার্বক্ষণিক গোয়েন্দা নজরদারিতে থাকতেন।

তিনি বলেন, এসব গোপন দলিল বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সংগ্রামের শুধু রেকর্ডই নয় বরং এগুলো কীভাবে একটি স্বাধীন দেশের জন্ম হলো তারও ঐতিহাসিক দলিল।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সংগ্রামের ইতিহাস কীভাবে তৈরি হলো তা এইসব গোপন দলিলে প্রদর্শিত হয়েছে। এসব নথিতে জাতির পিতার অপরিসীম দুর্ভোগ ও ত্যাগের চিত্র রয়েছে। এই নথিগুলো একজন জাতীয় নেতা, একজন রাষ্ট্রনায়ক এবং একজন আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব তৈরির বিবরণ।

সরকার প্রধান বলেন, বঙ্গবন্ধু তার রাজনৈতিক জীবনের প্রথমদিন থেকেই নীতি ও মূল্যবোধের পক্ষে থাকায় বিরোধীরা… তাকে টার্গেট করেছিল। একই বাহিনী ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের জন্য দায়ী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করে তার সংগ্রামের প্রতি সুবিচার করার অঙ্গীকার নবায়ন করছি।

এ সময় শেখ হাসিনা এই প্রকাশনার জন্য বাংলাদেশের হাক্কানি পাবলিশার্সের সঙ্গে অংশীদারিত্বে এগিয়ে আসায় টেলর অ্যান্ড ফ্রান্সিস গ্রুপকে ধন্যবাদ জানান।

পরে প্রধানমন্ত্রী ‘বঙ্গবন্ধু অ্যান্ড ব্রিটেন: এ সেন্টেনারি কালেকশন’ শীর্ষক একটি শিল্প প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More