স্ত্রীর সামনেই স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করে পর,কীয়া প্রেমিক

স্ত্রীর সামনেই স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করে পরকীয়া প্রেমিক

Related Posts
1 of 151

নরসিংদীর চিনিশপুরে শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার পথে স্ত্রীর সামনে সুজন সাহা (৩৪) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শুক্রবার রাতে সুজন সাহার স্ত্রী অদ্বিতী সাহার পরকীয়া প্রেমিক তামজিদকে (১৮) গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

গ্রেফতারের পর শনিবার সন্ধ্যায় হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে তামজিদ। পুলিশ তার স্বীকারোক্তি মতে রক্তমাখা কাপড় ও হত্যায় ব্যবহৃত চাপাতিটি উদ্ধার করেছে। অভিযুক্ত তামজিদ নরসিংদী শহরের ভেলানগর মহল্লার ফেরদৌস মিয়ার ছেলে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক রুপণ কুমার সরকার ও সদর থানা পুলিশের তদন্তকারী কর্মকর্তা তাপস কান্তি রায় জানান, গত বুধবার (১৬ আগস্ট) রাতে ঢাকা থেকে নরসিংদীতে শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে যাওয়ার পথে স্ত্রীর সামনেই দুর্বৃত্তের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন হন ঢাকার পীবেরবাগ এলাকার সুজন সাহা। এ ঘটনায় নরসিংদী সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়। পরে তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় মামলার তদন্ত করতে গিয়ে মোবাইল ফোনের একটি এসএমএসের সূত্র ধরে শুক্রবার রাতে গ্রেফতার করা হয় তামজিদকে।

গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তামজিদ পুলিশকে জানায়, অদ্বিতী সাহার সঙ্গে বিগত প্রায় ৫ বছর যাবৎ তামজিদের প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। হিন্দু-মুসলমান হওয়ায় পরিবার তাদের প্রেমের সম্পর্ক মেনে নেয়নি। একপর্যায়ে ৫ মাস আগে পরিবার জোরপূর্বক ঢাকার সুজন সাহার সঙ্গে অদ্বিতী সাহার বিয়ে দিয়ে দেয়।

বিয়ের পরও প্রেমিক তামজিদের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রক্ষা করতে থাকে অদ্বিতী সাহা। পরে স্বামী সুজন সাহা ও তার পরিবারের লোকজনের চোখে ধরা পড়ে অদ্বিতীর পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক। এ নিয়ে স্বামী সুজন সাহা স্ত্রী অদ্বিতীকে গালিগালাজ করে। এতে ক্ষিপ্ত হয় তামজিদ। পরে অদ্বিতী সাহা কিছু একটা করার জন্য বলে প্রেমিক তামজিদকে।

ঘটনার দিন অদ্বিতী সাহা স্বামীকে নিয়ে নরসিংদীতে তার বাবার বাড়িতে মনসা পূজায় অংশগ্রহণের জন্য বেড়াতে যাচ্ছিল। যাওয়ার সময় অদ্বিতী সাহা স্বামীকে নিয়ে ট্রেনে নরসিংদী নেমে বাবার বাড়ি যাবে বলে এসএমএসের মাধ্যমে প্রেমিককে জানিয়ে দেয়। এ তথ্য পেয়ে তামজিদ তার বাসা থেকে চাপাতি নিয়ে সাদা গেঞ্জির কাপড়ে পেঁচিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে পড়ে এবং ঘটনাস্থলের পাশে অপেক্ষা করতে থাকে। ঘটনাস্থল চিনিশপুর কালিমন্দিরের কাছে পৌঁছালে মুখোশধারী তামজিদ সুজন সাহাকে এলাপাতাড়ি কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায়।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More