১২ দিন পর বাড়ি ফিরে প্রবাসীর স্ত্রী বললেন, জিনে এনে দিয়ে গেছে!

১২ দিন পর বাড়ি ফিরে প্রবাসীর স্ত্রী বললেন, জিনে এনে দিয়ে গেছে!
 

নোয়াখালীর হাতিয়া থেকে চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে মাইজদীর সোনাপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী নাসরিন আক্তার (২২) নিখোঁজের ১২ দিন পর ফিরে এসেছেন নিজ বাড়িতে। ফিরে এসে ওই গৃহবধূ বললেন, তাকে জিনে এনে বাড়িতে দিয়ে গেছে।

বর্তমানে ওই গৃহবধূ হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তবে নিখোঁজের ১২ দিন পর নিজে নিজে ওই সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর বাড়ি ফিরে আসা নিয়ে এলাকায় গোলকধাঁধা সৃষ্টি হয়েছে।
প্রবাসীর স্ত্রী হাতিয়া উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের আজিজিয়া গ্রামের আবদুর রহমান’র মেয়ে।
সুধারাম থানা পুলিশ বলছে, নিখোঁজের ঘটনায় গৃহবধূর পরিবার গত (১৩ অক্টোবর) সুধারাম থানায় একটি অপহরণ মামলা করেছিল।
সুধারাম মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) টমাস বড়ুয়া বলেন, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় ভিকটিমের পিতা ওই সময় বাদী হয়ে একটি অপহরণ মামলা করে ছিল। কিন্তু রোববার ওই গৃহবধূ নিজে নিজে বাড়িতে ফিরে আসার খবর পাওয়া গেছে। পরবর্তীতে খতিয়ে দেখে পুলিশ তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।
প্রসঙ্গত, কিছুদিন ধরে অসুস্থবোধ করায় নাসরিনকে চিকিৎসা করানোর জন্য গত (৮ অক্টোবর) সকাল ৮টায় হাতিয়া থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশে যাওয়ার পথে দুপুর ১টার দিকে মাইজদীর সোনপুর জিরো পয়েন্ট এলাকায় পৌঁছানোর পর নাসরিনের অসুস্থ হয়ে পড়লে মেয়েকে একুশে বাস কাউন্টারে রেখে ওষুধ আনতে যায় তার বাবা। পরে ৫-১০ মিনিট পর তিনি কাউন্টারে এসে দেখেন নাসরিন নেই।

 

 

নরসিংদীতে ‘থার্টি ফার্স্ট’ উপলক্ষে চাঁদা না দেয়ায় ব্যবসায়ীকে কোপালো সন্ত্রাসীরা
Related Posts
1 of 151

 

নরসিংদীতে ‘থার্টি ফার্স্ট’ উপলক্ষে পার্টি করতে চাঁদা না দেয়ায় সজীব মিয়া নামে এক ব্যবসায়ীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা।

বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) বিকেলে নরসিংদী জেলা স্টেডিয়াম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মুমূর্ষু অবস্থায় সজীবকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, থার্টি ফার্স্ট উপলক্ষে পার্টি করার জন্য বিলাসদী এলাকার সাকিব, সালমান, শুভ, সিয়াম, সোহান ও তানজিদ নরসিংদী স্টেডিয়াম মার্কেটে বিসমিল্লাহ অটোবি ফার্নিচারের মালিক সজীব মিয়ার কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দিতে চাইলে তাকে দেখে নেয়ার হুমকি দেন।
কিছুক্ষণ পর সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে ওই ব্যবসায়ীর ওপর হামালা চালানোর চেষ্টা করেন। পরে তিনি আত্মরক্ষায় পার্শ্ববর্তী ফুড ভিলেজ অ্যান্ড রেস্টুরেন্টের ক্যাশ কাউন্টারের নিচে লুকিয়ে থাকেন। সন্ত্রাসীরা সজীবকে রেস্টুরেন্টর ভেতরে ডুকে চাপাতি দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে আহত করেন। পরে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে সন্ত্রাসীরা আবার হামলা চালান।
দ্বিতীয় দফা হামলায় সজীব গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যান। পরে তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়।
সদর মডেল থানার ওসি বিপ্লব কুমার দত্ত চৌধুরী বলেন, ব্যাডমিন্টন খেলা নিয়ে আহত সজীবের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এর জেরে সকালেও উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে বিকেলে প্রতিপক্ষরা হামলা চালায়।

 

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More