চকলেটের লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধ,র্ষণ

চকলেটের লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধ,র্ষণ

Related Posts
1 of 151
ফেনীর ছাগলনাইয়ায় চকলেটের লোভ দেখিয়ে সাত বছরের শিশুকে ধর্ষনের অভিযোগে বাহার নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

জুম্মার নামাজের সময়  নির্মাণাধীন একটি দোকানঘরের ভিতরে চকলেটের লোভ দেখিয়ে ভুক্তভোগী শিশুটিকে ডেকে নেয় অভিযুক্ত বাহার

ফেনীর ছাগলনাইয়ায় চকলেটের লোভ দেখিয়ে সাত বছরের শিশুকে ধর্ষনের অভিযোগে যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ । শনিবার সকালে ছাগলনাইয়ার পূর্ব শিলুয়া গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে নিশ্ছিত করেছেন ছাগলনাইয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুদীপ রায়।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিশুটির বাবা বাদী হয়ে ছাগলনাইয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এর প্রেক্ষিতে মোঃ বাহার (২৪) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বাহার পেশায় একজন হকার।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময় পূর্ব শিলুয়ায় গ্রামের নির্মাণাধীন একটি দোকানঘরের ভিতরে চকলেটের লোভ দেখিয়ে ভুক্তভোগী শিশুটিকে ডেকে নেয় বাহার। এরপর দোকানঘরের ভিতরে শিশুটিকে ধর্ষণ করে সে।

ওসি সুদীপ রায় ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “শুক্রবার রাতেই অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। শনিবার তাকে আদালতে উপস্থাপন করে ৩ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে আদালত তার এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে অভিযুক্তকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। আগামী সোমবার অভিযুক্ত ব্যক্তির রিমান্ডের দিন ধার্য্য করেন”।

তিনি আরো জানান, “ভুক্তভোগী শিশুটির শারীরিক পরীক্ষা-নীরিক্ষার জন্য ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। সেখানে পরীক্ষা শেষে ২২ ধারায় জবানবন্দির জন্য শিশুটিকে আদালতে নেওয়া হবে”।

রাতের অন্ধকারে উধাও ৮০০ কিলো গোবর চুরির অভিযোগ, তদন্তে পুলিশ

রাতের অন্ধকারে উধাও ৮০০ কিলো গোবর চুরির অভিযোগ, তদন্তে পুলিশ

ক্রাইম ডেস্ক :: নয়াদিল্লিতে রাতের অন্ধকারে ৮০০ কিলো গোবর চুরি। আর এই ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের হল। ঘটনা ছত্তীসগঢ়ের কোবরা জেলার ধুরেনা গ্রামের। রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এই ঘটনায়। পুলিশ সূত্রে খবর, চলতি মাসে ৮ জুন এই ঘটনাটি ঘটেছে। ইতিমধ্যে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে ৮০০ কিলো ওই গোবরের বাজার মূল্য ১৬০০ টাকা। গত ৮ জুন এবং ৯ জুন মধ্য রাতে গ্রাম থেকে গোবর চুরি হয়ে যায়। পুলিশ অফিসার হরিশ তান্ডেকর জানিয়েছেন, ওই গ্রামের গো – থানের প্রধান কামহান সিংহ কানওয়ার গত ১৫ জুন অভিযোগ দায়ের করেন। গোধন ন্যায় যোজনার আওতায় ছত্তীসগঢ় সরকার প্রতি কেজি গোবর ২ টাকায় কিনছে। আর তাই দিনের বেলায় গো-থানে গরু রাখা হয়ে থাকে। গো-থানে থেকে গোবর সংগ্রহ করে ভার্মি-কম্পোস্টের মতো প্রাকৃতিক সার তৈরি করা হয়। একাংশের ধারণা সার তৈরির জন্যই কেউ ওই গোবর চুরি করেছে।

গত ১৫ জুন অভিযোগ দায়ের হলেও, রবিবার এই ঘটনা সামনে এসেছে। অনেকেই এই ঘটনাকে অস্বাভাবিক বলে ব্যাখ্যা করছেন। ছত্তীশগড় পুলিশ সূত্রে খবর, অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশের ধারণা যে বা যাঁরা এই কাজের সঙ্গে যুক্ত তারা গো-থানে কী কাজ হয় তা সম্পর্কে সবটাই জানে। পুলিশ অফিসার হরিশ তান্ডেকর বলেন, ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। দোষীদের খোঁজেও তল্লাশি শুরু করা হয়েছে। কী উদ্দেশে তারা এই কাজ করল তাও খতিয়ে দেখা হবে বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More