হুজুররা ধর্ষ,ন করে আমার মেয়েকে মেরে ফেলেছে!

হুজুররা ধর্ষ,ন করে আমার মেয়েকে মেরে ফেলেছে!

Related Posts
1 of 151

মাদরাসার হুজুররা ধর্ষন করে আমার মেয়েকে মেরে ফেলেছে! এমনটাই দাবী করলেন সীমা বেগম নামের এক নারী। তার মেয়ে মুবারর মুনতাহা ওরফে সানজিদা রশিদ মীম (১৪) রামপুরা জাতীয় মহিলা মাদরাসায় নাজরানা শ্রেণিতে পড়তো।

গত ৬ মাস ধরেই আদালতে ঘুরছেন সীমা বেগম, নিজের মেয়ের হত্যার ন্যায়বিচার পাবার আশায়। তিনি জানান, তার মেয়ে মাদরাসার আবাসিকেই থাকতো। তাকে মাদরাসার হুজুররা কুপ্রস্তাব দেয়। কিন্তু, সেই প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তার মেয়েকে ধর্ষন করে মেরে ফেলা হয়।

 

গত ২২শে সেপ্টেম্বরে মাদরাসার মেয়েদের আবাসিক হলে ঢুকে হুজুরেরা তার মেয়েকে ধর্ষন করে বলে জানান তিনি। ধর্ষন করে তার মেয়েকে গলায় ওড়না দিয়ে সিলিং ফ্যানে ঝুলিয়ে রাখে।

তিনি জানান, তার মেয়ের পায়ের নিচে কাটা ছিলো, কোমরে আঘাতের দাগ ছিলো। এছাড়াও সারাদেহে ছিলো আঘাতের চিহ্ন।

তিনি জানান, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পরিবর্তন করার জন্য তার সামনেই দায়িত্বরত চিকিৎসককে দেয়া হয় দুইলাখ টাকা। এছাড়াও বিভিন্ন স্থানে তারা বিপুল পরিমান টাকা খরচ করে বলে জানান নিহত মীম এর মা সীমা বেগম।

এই কেস শুরু করা থেকে এখন পর্যন্ত পুলিশ তাকে ও তার স্বামীকে বিভিন্নভাবে চাপ দিচ্ছে বলে জানান তিনি। এছাড়াও বিভিন্ন মহল থেকে বিভিন্নরকমের হুমকিও পাচ্ছেন তারা।

সোনারগাঁয়ে পুলিশ অভিযানে পিকাপ ভ্যান থেকে ৩৬৯ বোতল ফেন্সিডিল উদ্বার

সোনারগাঁ(নারায়ণগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের টিপরদী এলাকা থেকে ৩৬৯ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ। বুধবার সকালে একটি পিকাপ ভ্যানে অভিযান চালিয়ে ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

হাইওয়ে পুলিশের কাঁচপুর থানার ওসি মোঃ সাজ্জাদ করিম খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি চট্রগ্রাম থেকে ঢাকাগামী একটি পিকাপভ্যানে ফেন্সিডিলের চালান আসছে৷ ওই সংবাদের ভিত্তিতে মহাসড়কের টিপরদী এলাকায় ওসি সাজ্জাদ করিম খানের নেতৃত্বে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ মাদক বহনকারী পিকাপটি থামানোর জন্য সংকেত দিলে পিকাপ চালক পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পিকাপ ফেলে পালাতে সক্ষম হয়৷

এ সময় পুলিশ পিকাপে তল্লাশি চালিয়ে উল্লেখিত ফেন্সিডিল উদ্বার করে৷  এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে৷

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More