মামা বাড়িতে পূজা দেখতে গিয়ে মামিকে নিয়ে পা’লায় ভাগ্নে…

মামা বাড়িতে পূজা দেখতে গিয়ে মামিকে নিয়ে পা’লায় ভাগ্নে…

প’রকীয়া মানুষের কাছে চিরকালই খুব আগ্রহের জিনিস। কিন্তু মানুষ প’রকীয়াকে গভীর গো’পন পাপের চোখে দেখে। সেটা করার জন্য মানুষ ভয়ও পায়।ভয়ের কারণে অন্য কারুর বউকে পছন্দ হলে পু’রুষেরা একদমই সেটা খো’লাখুলি ভাবে বলে না। লু’কোতে চেষ্টা করে। কিন্তু তারা বুঝতে পারে না যে প্রেম লু’কিয়ে রাখা যায় না কখনোই।

তাও তারা চে’ষ্টা করে লো’কচ’ক্ষুর আড়া’লে থেকে নিজেদের সম্পর্ককে বাঁ’চাতে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সবকিছুই প্রকাশ হয়ে যায়। এখন সবাই লু’কিয়ে লুকি’য়ে না করে সামনে এসে বীরের মত প্রেম করে। প’রকীয়া নিয়ে এখন আর কেউ চা’প নেয় না একদমই। কারণ পর’কীয়া এখন বৈ’ধ।

অন্তত আ’দালতের নতুন নিয়ম অনুযায়ী তো তাই। এইসব ব্যাপার এখন খুব সাধারণ হয়ে গেছে। লোকের চোখে এখন অ’পরাধী ‘হতে আর কেউ ভয় পায় না। বর্তমানে প’রকীয়া নিয়ে বহু খবর সামনে এসেছে। আজ আমর’া এইরকমই এক ডেয়ারডেভিলের গল্প আপনাদের জানাবো। সুরক্ষার জন্য আমর’া নাম ব্যবহার করছি না।

গ্রামের এক বাড়িতে চলছে পূজার অনুষ্ঠান। বিশাল বড় পরিবার। সেই পরিবারের সদস্য সংখ্যা এত বেশী যে তাদের দেখে অন্য অনেক পরিবার হিং’সা করে। কারণ তারা সবসময় একসাথে সময় কা’টায়, আনুন্দ করে। তাদের বাড়ির পূজা অনুষ্ঠান জাঁকজমক হয় দেখার মত। এত জাঁকজমক গোটা গ্রামের লোকই কখনোই দেখেনি।

Related Posts
1 of 151

কিন্তু কেউই জানে না যে তাদের বাড়িতে বাসা বেঁধেছে এক পা’প। সেই পা’পের গল্প জানা ছিল না কারুর। এটা সকলের অবিশ্যাস্য যে এই বাড়িতে এত সুখের মধ্যেও বাসা বাঁধতে পারে পা’প। এই বাড়ির এক ভা’গ্নে প্রচ’ণ্ড দে’হলোলুপ। সে আগে থেকেই তার মামিকে দেখে তার প্রেমে পড়েছিল এবং একদমই সেই মামিকে তার চোখের আড়ালে ‘হতে দিত না।

কেউই ভাবতে পারেনি যে সে মামির প্রেমে হা’বুডু’বু খাচ্ছে। লোকজন স’ন্দে’হ করেছিল সামান্য। তবে তাদের সেই স’ন্দে’হ আরো দৃ’ঢ় হয়েছিল যখন তারা তাদের দুজনকে এক’সাথে দেখতে পেয়েছিল। শেষ পর্যন্ত অবশ্য সব সন্দে’হের অবসান ঘটিয়ে পূজার দিন তারা দুজন একসাথে বাড়ি ছেড়ে রাতের অন্ধকারে পা’লিয়ে যায়।

তারা পা’লানোর পর পাড়ার সবাই ছি ছি কারে ভ’রিয়ে দিয়েছে, চলছে প্রচ’ণ্ড সমা’লচনা। পরিবারে লেগেছে তু’মুল অ”শান্তি। তাদের দুজনের খবর এখনও পাওয়া যায়নি। পর’কীয়া বৈ’ধ, তাই হয়ত আই’নত তাদের কিছু হবে না। কিন্তু ভবি’ষ্যতে খবর পেলে তাদের পরিবার যে কি করবে কে জানে। প’রকী’য়ার সু’বিধা এবং অসু’বিধা দুটোই আছে।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More