মাঝ রাস্তায় প্রেমিকের পা ধরে ক্ষমা প্রার্থনা প্রেমিকার, অতঃপর…

ঢাকা: লোহা পুড়ে যেমন সোনা হয় তেমনই মানুষ পুড়ে হয় খাঁটি। ভালোবাসার পরীক্ষা দিতে দিতে মন পুড়ে হয় অন্যের। মন থেকে চাওয়া কোনোকিছু হাজার কঠিন সময়ের মাঝে দিয়ে গিয়েও শেষপর্যন্ত পাওয়া যায়।

মন থেকে আসা ভালোবাসা তার গন্তব্য এবং পথ ঠিক বেছে নেয়। ভালোবাসার ক্ষেত্রে একটি মত কিংবা একটি দিক এখন পর্যন্ত কেউ সঠিক উত্তর দিতে পারেন নি। তা হচ্ছে একজন প্রেমিক বেশি ভালোবাপ্রেমের পথ সব সময় মসৃণ হয় না। কখনও কখনও এমন পরিস্থিতি আসে, যখন প্রেমিক-প্রেমিকা যুগলের মধ্যে মান-অভিমান অনিবার্য হয়ে ওঠে।

অবস্থা ত‌েমন গুরুতর হয়ে উঠলে ব্রেক আপ ঠেকানোও কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। সম্প্রতি তেমনই এক মর্মান্তিক ব্রেক আপের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।‘ভাইরাল ভিডিও’ নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড হওয়া এই ভিডিওর উৎস ন। কোনও এক অজানা কারণে প্রেমিকের উপর রাগ করেছিলেন তরুণী।

গতানুগতিক ঝগড়াঝাঁটির পরে ব্যাপার এমন‌ চরমে পৌঁছায় যে, ব্রেক আপের কথা ঘোষণা করে দেন প্রেমিকা। তাতেই একেবারে ভেঙে পড়েন যুবক। প্রকাশ্য রাস্তায় কাঁদতে কাঁদতে গার্লফ্রেন্ডের পায়ে পড়ে যান তিনি। সেই সময় ক্রমাগত বলতে থাকেন, ‘আমায় ক্ষমা করে দাও।’ কিন্তু তরুণীর মন অতো সহজে গলেনি।

তিনি রাগের চোটে চড় মারতে থাকেন তার প্রেমিককে। প্রেমিকও নাছোড়বান্দা। তিনি এম‌ন ভাবে প্রেমিকার পা জড়িয়ে পড়ে থাকেন যে, প্রথমে মেয়েটির পায়ের জুতো, এবং তার পর তার স্টকিংগস খুলে বেরিয়ে আসে তার পা থেকে। সেই সময়েই কেউ দু’জনের ভিডিও তুলে নেন মোবাইলে।

শেষ পর্যন্ত ভিডিওর সঙ্গে শেয়ার হওয়া টেক্সট থেকে জানা যায় যে, এই ঘটনার পরে তাদের ব্রেক-আপ হয়ে যায়। সোশ্যাল মিডিয়ার দুনিয়া জুড়ে অজস্র মানুষ ভিডিওটি দেখেছেন। অনেকে যেমন মজা পেয়েছেন এই ভিডিও দেখে, তেমনই অনেকে আবার মেয়েটির নির্দয়তা দেখে ক্ষুব্ধও হয়েছেন। তাদের মনে হয়েছে, এমন আবেগময় ক্ষমাপ্রার্থনার পরেও কি ক্ষমা করে দেওয়া যেত না ওই যুবককে!

সব ভুলে ১৮ বছর পর জুটি বাঁধছেন হৃতিক-কারিনা!

বলিউডে একসময় জনপ্রিয় জুটিগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি জুটি ছিল হৃতিক রোশন ও কারিনা কাপুর খানের জুটি। ‘কাভি খুশি কাভি গাম’ সিনেমায় তাদের জুটিকে সব থেকে বেশি জনপ্রিয়তা পাই। সর্বশেষ এই জুটি একসঙ্গে কাজ করেছেন ২০০৩ সালে। ‘ম্যায় প্রেম কি দিওয়ানি হু’ ছবিতে।

এর পর আর একসঙ্গে দেখা যায়নি তাদের। তবে বলিউডে জোর খবর আবারও একসঙ্গে কাজ করতে যাচ্ছেন হৃতিক ও কারিনা।ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ এইট্টিনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বলিউডের নামি প্রডাকশন হাউস ‘জংলি পিকচার্স’-এর পক্ষ থেকে নতুন ছবির জন্য প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে হৃতিক ও কারিনাকে। ছবির নামও ঠিক হয়ে গেছে। ছবির নাম ‘উলাজ’।

এই ছবির স্ক্রিপ্ট শুনতে রাজি হয়েছেন তারা।প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, দীর্ঘদিন মনোমালিন্য ছিল এই জুটির। এবার সব কিছু কাটিয়ে একসঙ্গে কাজ করবেন তারা। ছবির শুটিং বেশিরভাগ হবে মুম্বাইয়ের বাইরে। তাই কথা চলছে দুজনের ডেট নিয়েও। এখন দেখার বিষয়, কবে সিনেমার কাজ শুরু করবেন তারা।

২০০০ সালে মুক্তি পায় আমিশা প্যাটেল ও হৃতিক রোশন অভিনীত ‘কহোনা পেয়ার হ্যায়’। এ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন হৃতিক। প্রথমে এই সিনেমা করার কথা ছিল কারিনার। কিন্তু মা ববিতা বাধ সাধেন। কারণ ছবিটি ছিল নায়ককেন্দ্রিক। আর সে জন্য মেয়েকে এই ছবি দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করতে দেননি ববিতা।

কারিনা ডেবিউ করেন ‘রিফিউজি’ সিনেমা দিয়ে। তার বিপরীতে ছিলেন অভিষেক বচ্চন। সেই সময় অভিষেক ও কারিশমার প্রেম নিয়ে বলিউড জোর আলোচনা চলছিল। বিয়ের কথাও পাকা হয়ে গিয়েছিল কারিশমা-অভিষেকের। কিন্তু দুই পরিবারের মনোমালিন্যে বিয়ে ভেঙে যায়। তবে সেসব ব্যক্তিগত বিষয় প্রফেশনাল জীবনেও অনেক প্রভাব ফেলে।

তবে এর সঙ্গে হৃতিকের সম্পর্ক নেই। কারিনা ও হৃতিকের কী কারণে মনোমালিন্য তা জানা যায়নি। এবার সব ভুলে একসঙ্গে পর্দায় আসবেন তারা। স্বাভাবিকভাবেই এ জুটিকে দর্শক খুব পছন্দ করেন।